শুক্রবার, ২৭ জানুয়ারী ২০২৩, ০১:২৮ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম
প্রধানমন্ত্রী আজ গাজীপুর যাচ্ছেন বাংলাদেশ ফটোগ্রাফিক এসোসিয়েশন আয়োজিত “বিপিএ সম্মাননা-২০২২ পেলেন মোস্তাফিজুর রহমান মিন্টু কিংবদন্তী শিল্পী মুস্তাফা মনোয়ারের নামে স্টুডিও নামফলক উন্মোচন চির নিদ্রায় শায়িত হলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা সুলতান উদ্দিন আহমেদ রাজা মাদারগঞ্জে মাছ ধরতে গিয়ে পানিতে ডুবে কিশোরের মৃত্যু মাদারগঞ্জে শেখ হাসিনা বিশেষায়িত জুট মিল ও শেখ রাসেল টেক্সটাইল ইন্সটিটিউট পরিদর্শন আমরা আজ যা ভেবেছি, বহির্বিশ্ব আগামীকাল তা ভাববে গ্রাহক সেবায় বৈপ্লবিক উন্নয়ন বিআরটিএতে ‘বাইডেন জিতলে অভিবাসী বাংলাদেশিরা সুবিধা পাবেন’ দেশে করোনার টিকা বিতরণে মাস্টারপ্ল্যান হচ্ছে

মাগুরায় বারোমাসি থাই আম চাষে সাফল্য

কালেরপত্র ডেষ্ক :

মাগুরায় বারোমাসি থাই আম চাষে সাফল্য পেয়েছেন সদর ও শালিখা উপজেলার কয়েকজন যুবক। অসময়ে আম বাজারজাত হওয়ায় দামও অনেক বেশি পাওয়া যায়। জেলায় এ আম চাষের সাফল্যের ফলে সারাদেশে ছড়িয়ে পড়ছে থাই জাতের আমের চাষ।

এই অসময়ে মাগুরার কয়েকটি আম বাগানে থোকায় থোকায় ঝুঁলছে আম। এ আম পাকতে পাকতেই গাছে দেখা যাবে আমের নতুন গুটি। সদর উপজেলার কয়েকটি স্থানে থাই বারোমাসি জাতের আম বাগানে দেখা যাচ্ছে এ দৃশ্য

আম চাষি কাশেম হোসেন জাগো নিউজকে বলেন, ২০১৮ সালের দিকে তিনি পরীক্ষামূলকভাবে নিজের জমিতে থাই বারোমাসি আমগাছ রোপণ করেন। একসময় গাছগুলোতে আম আসতে শুরু করে। আম সুস্বাদু হওয়ায় ভোক্তাদের আগ্রহ ও চাহিদা বাড়ায় দামও বাড়তে থাকে। অসময়ে এসব আম ২০০ থেকে ৫০০ টাকা কেজি দরেও বিক্রি হয়ে থাকে বলে জানান তিনি।

শালিখার কয়েকজন আম চাষি জানান, বর্তমানে এক বিঘা জমিতে আমের চাষ করতে প্রাথমিক পর্যায়ে ৫০ হাজার টাকা খরচ হয়। যা থেকে বছরে ৪ থেকে ৫ লাখ টাকা পর্যন্ত আয় করা সম্ভব বলে জানান চাষিরা।

মাগুরা হর্টিকালচার সেন্টারের উদ্যানতত্ত্ববিদ রোকনুজ্জামান জানান, মাগুরা জেলায় প্রায় ৯০ বিঘা জমিতে বারোমাসি থাই আমের চাষ হচ্ছে। একটি গাছ থেকে বছরে তিনবার আম সংগ্রহ করা যায়। এ আম পাকলেও প্রাকৃতিক উপায়েই দীর্ঘ সময় সংরক্ষণ করা যায় বলেও জানান এ কৃষি কর্মকর্তা।

সংবাদটি শেয়ার করুন :

ওয়েবসাইট ডিজাইন প্রযুক্তি সহায়তায়: ইয়োলো হোস্ট

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত